কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এসএম তানভীর আরাফাত পেলেন রাষ্ট্রপতি পদক

সারা বাংলা ডেস্ক : বাংলা অলটাইম নিউজ ডটকম,
কুষ্টিয়া থেকে শাহারিয়ার ইমন:-আইনশৃঙ্খলা রক্ষা, অপরাধ দমনে সাহসিকতা, সেবা ও কর্মদক্ষতার স্বীকৃতি হিসেবে এ বছর রেকর্ড সংখ্যক ৩৪৯ পুলিশ সদস্যকে বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম) ও প্রেসিডেন্ট পুলিশ পদকে (পিপিএম) ভূষিত করা হয়েছে।

এর মধ্যে ২০১৮ সালে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে অসীম সাহসিকতা, অপরাধ নিয়ন্ত্রণ, দক্ষতা, কর্তব্যনিষ্ঠা, সততা ও শৃঙ্খলামূলক আচারণের মাধ্যমে প্রশংসনীয় অবদানের জন্য এস এম তানভীর আরাফাত, পিপিএম, পুলিশ সুপার, কুষ্টিয়া মহোদয় রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক (পিপিএম-সেবা) অর্জন করেছে। কুষ্টিয়া জেলা পুলিশের পুলিশ সুপার এসএম তানভীর আরাফাত পিপিএম, রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক (পিপিএম-সেবা) পাওয়ায় জেলা পুলিশ অভিনন্দন জানিয়েছেন।

কুষ্টিয়া পুলিশ সুপার, কুষ্টিয়া মহোদয়ের এইরকম বীরত্বপূর্ণ কাজের মাধ্যমে সারাজীবন মানুষের সেবা করতে পারে সেই কামনা করছে কুষ্টিয়া জেলা পুলিশ। কুষ্টিয়া জেলা পুলিশের পুলিশ সুপার এস.এম তানভীর আরাফাত পিপিএম, ২০১৮ সালে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে অসীম সাহসিকতা, অপরাধ নিয়ন্ত্রণ, দক্ষতা, কর্তব্যনিষ্ঠা, সততা ও শৃঙ্খলামূলক আচারণের মাধ্যমে প্রশংসনীয় অবদানের জন্য রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক (পিপিএম-সেবা) অর্জন কড়াই কুষ্টিয়া জেলা মাদক প্রতিরোধ কমিটি ও কুষ্টিয়া জেলা যুব প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।
আজ মঙ্গলবার (২৯ মঙ্গলবার) উপসচিব ফারজানা জেসমিনের সই করা এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানা গেছে।
গত বছরে নিজেদের পেশায় অসীম সাহসিকতা ও বীরত্বমূলক কাজের স্বীকৃতি হিসেবে এ বছর পুলিশের ৪০জন সদস্যকে বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম), ৬২ জনকে রাষ্ট্রপতির পুলিশ পদক দেয়া হয়েছে।
এছাড়া গুরুত্বপূর্ণ মামলার রহস্য উদঘাটন, অপরাধ নিয়ন্ত্রণ, দক্ষতা, কর্তব্যনিষ্ঠা, সততা ও শৃঙ্খলামূলক আচরণে প্রশংসনীয় অবদান রাখায় ১০৪জনকে বিপিএম-সেবা ও ১৪৩ জনকে রাষ্ট্রপতির পুলিশ পদক পিপিএম-সেবা প্রদান করা হয়েছে।
প্রধানমন্ত্রী পুলিশের সেরা কর্মকর্তা ও সদস্যদের প্রতিবছর বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম) ও রাষ্ট্রপতির পুলিশ পদকে (পিপিএম) ভূষিত করেন। পুলিশের চাকরিতে এই পদক খুবই সম্মানজনক বলে বিবেচনা করা হয়।
পদক পাওয়া কর্মকর্তারা আর্থিক সুবিধাও ও নামের শেষে উপাধি হিসেবে এই পদক ব্যবহার করতে পারেন।
পেশাগত জীবনে সাহসিকতা, বীরত্বপূর্ণ ও সেবামূলক কাজের বিবেচনায় এ পদক দেয়া হয়। গত বছর ১৮২ জন এ পদক পেয়েছিলেন। এ বছর পুলিশ পদক দেয়ার জন্য প্রায় সাড়ে তিন শ কর্মকর্তার তালিকা করা হয়েছিল।
এ পদকের যোগ্য কর্মকর্তাদের বাছাই করতে পুলিশ সদর দপ্তরে একটি কমিটি করা হয়। পুলিশের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা ও সদস্যরা বছরে তাদের সেরা কাজটির বিবরণ কমিটির কাছে পাঠান।
সেই বিবরণের যাচাই শেষে পুলিশ সদর দফতরের কমিটি পদক পাওয়ার জন্য কর্মকর্তাদের একটি তালিকা তৈরি করে প্রধানমন্ত্রীর দফতরে পাঠান। তবে প্রধানমন্ত্রীই এ তালিকা চূড়ান্ত করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here