কুষ্টিয়ায় সাংবাদিক হত্যা চেষ্টা মামলার প্রধান আসামী আলামিন ও সালাম আটক

কুষ্টিয়া শহরের মঙ্গলবাড়ীয়া বাজার এলাকায়  পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে গত ৮ ই এপ্রিল ২০২৩ইং তারিখে মাদক ব্যবসায়ীরা হত্যা উদ্দেশ্য সাংবাদিক নাসির উদ্দিনের উপর দেশীয় ধারালো অস্ত্র দিয়ে অতর্কিত হামলা চালায়। সাংবাদিক নাসির উদ্দিনের উপর মাদক কারবারিদের এই নিকৃষ্টতম হামলা সম্পর্কে  কুষ্টিয়াবাসী অবগত আছেন। মহান সৃষ্টিকর্তার অশেষ  রহমতে এবারের মত  সাংবাদিক নাসির উদ্দিনের প্রাণ রক্ষা পায় ।

এই হামলার নেতৃত্ব দেয় মঙ্গলবাড়ীয়া এলাকার মাদক ব্যবসায়ী, কিশোর গ্যাং ও দেশী-বিদেশী অস্ত্র ব্যবসায়ী আলামিন ও সালাম। এর সাথে আরও ছিলো সালাফ ও মেহেদী। স্থানীয় সূত্রে জানায়, দীর্ঘদিন আলামিন ও সালাম এলাকায় মাদক ব্যবসা, কিশোর গ্যাং ও ছিনতায় কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। নাসির উদ্দিনের উপর হত্যা উদ্দেশ্যে ধারালো অস্ত্র দিয়ে মঙ্গলবাড়ী বাজারের মুরগির ব্যবসার অন্তরালে মাদক ব্যবসায়ী ও কিশোর গ্যাং পরিচালনাকারী আলামিন ও সালাম মুরগী জবাই করা ধারালো অস্ত্র দিয়ে হত্যা করার উদ্দেশ্যে এই হামলা চালিয়েছে।

এই সেই চিহ্ন সন্ত্রাসী আলামিন যার নামে সিএনজি চালক হত্যা মামলা, ডাকাতি, মাদক ও অস্ত্র মামলাসহ একাধিক মামলা রয়েছে বলে । আর সালামের নামে একাধিক মাদক মামলা আছে বলে অনুসন্ধানে জানা যায় ।

আলামিন ও সালাম উঠতি বয়সী কোমলমতি কিশোরদের ব্যবহার করে, মাদক বিক্রি ও ছিনতায়ের মতো বেআইনি কার্যক্রমের নেতৃত্ব দিয়ে থাকেন । কিশোরা অত্যাধিক বেপরোয়া এবং নিজেদের ক্ষমতা দেখানোর জন্য যে কোন ধরনের অপরাধ করতে দ্বিধা করে না ।

তাদের এই বেপরোয়া আচরণকে কাজে লাগিয়ে তুরুপের তাস হিসেবে ব্যবহার করছে এই সব মাদক ব্যবসায়ীরা। কিশোর গ্যাংয়ের নেতৃত্ব দিয়ে শহর এলাকায় বিভিন্ন ধরনের বেআইনি কার্যক্রমের আশ্রয় ও প্রশ্রয়দাতা হিসেবে কাজ করে যাচ্ছেন আলামিন ও সালাম । সাংবাদিক নাসির উদ্দিন হত্যা চেষ্টা মামলার মুল পরিকল্পনাকারী আসামী আলামিন ও সালাম কে আটক করেন প্রশা সন।

হামলার শিকার হয়ে আহত সাংবাদিক নাসির বলেন, চিহ্ন মাদক ব্যবসায়ী, কিশোর গ্যাংয়ের পরিচালনাকারী ও অস্ত্র ব্যবসায়ী আলামিন ও সালামের কঠোর বিচার দাবির করছি । তিনি আরো বলেন এই কুখ্যাত মাদক কারবারি অস্ত্র ব্যবসায়ীরা যেন প্রশাসনের দৃষ্টিগোচর করে আইনের ফাঁকফোকর দিয়ে কোনভাবেই কেন বের না হতে পারে সেই দাবি প্রশাসনের কাছে । আমার মত পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে বাংলাদেশের বুকে আর কোন সাংবাদিক যেন হামলার শিকার হতে না হয়। পাশাপাশি এদের মূল পরিচালনাকারী ও ইন্ধন দাতাকে,খুঁজে বের করে আইনির জালে বন্দী করে এই ধরনের অপরাধ কে দমন করতে হবে ।