1. maruf.jhenaidah85@gmail.com : maruf :
  2. info@jhenaidah-protidin.com : shishir :
  3. talha@gmail.com : talha : Md Abu Talha Rasel
  4. : :
২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ| ৯ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ| বসন্তকাল| বৃহস্পতিবার| সন্ধ্যা ৭:৩০|

সম্পত্তি রক্ষায় ষড়যন্ত্র মুলক হয়রানী থেকে বাঁচতে সংবাদ সম্মেলন।

আজিজুল ইসলাম
  • Update Time : বুধবার, ২৩ আগস্ট, ২০২৩
  • ১৭২ Time View

খুলনা প্রতিনিধিঃ পাইকগাছায় পৈত্রিক সম্পত্তি রক্ষা, ষড়যন্ত্র ও বিভিন্ন ভাবে হয়রানী থেকে বাঁচতে উপজেলার কপিলমুনি বাজারের ব্যবসায়ী পঙ্কজ কর্মকার সংবাদ সম্মেলন করেছেন। পাইকগাছা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ব্যবসায়ী পঙ্কজ কর্মকার জানান, তিনি সম্প্রতি সময়ে তার বড়ভাই সুকুমার কর্মকার ও ভ্রাতুষ্পুত্র পলাশ কর্মকার কর্তৃক একের পর এক ষড়যন্ত্র ও বিভিন্ন হয়রানির শিকার হয়ে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। তিনি বলেন, তার পিতা গোষ্ঠ কর্মকারের মৃত্যুর পর হতে ভাই এবং তার ছেলে নানা ফন্দি ফিকির করে পিতার রেখে যাওয়া স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তি ফাঁকি দেওয়ার জন্য চেষ্টা করে আসছে। যার ধারাবাহিকতায় কপিলমুনি বাজারের স্বর্ণ পট্টিতে পিতার রেখে যাওয়া একটি দোকান পজিশন তার স্বাক্ষর জাল করে ভুয়া এগ্রিমেন্ট বলে দখল করে নিয়ে তাকে বঞ্চিত করতে উঠে পড়ে লেগেছে। তিনি উপায়ন্তর না পেয়ে সহি স্বাক্ষর জালিয়াতির বিষয় নিয়ে পাইকগাছা বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল আদালতে সিআর ১৩২৩/২২ নং মামলা করেছেন। বিজ্ঞ আদালত মামলাটি গ্রহণ পুর্বক তদন্তের জন্য সিআইডি খুলনাকে নির্দেশ দিয়েছেন। আর সেই কারণে তাকে ও তার পরিবারকে হুমকি সহ নানা ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে হয়রানি করে চলেছে বিরোধী পক্ষ। সম্প্রতি বাজারের লোহাপট্টিতে অবস্থিত তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে ঘিরে পার্শ্ববর্তী দোকানদারদের দিয়ে তুচ্ছ ঘটনায় তাকে ও তার ছেলেকে ফাঁসানোর চেষ্টায় থানায় মিথ্যা অভিযোগে জিডি করিয়েছে। যা সম্পুর্ন মিথ্যা ও বানোয়াট। লিখিত বক্তব্যে পঙ্কজ আরো বলেন, তিনি কপিলমুনি বাজারের একজন প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী। দীর্ঘ ৩৫ বছর যাবৎ কপিলমুনি বাজারে লোহাপট্টিতে অতীব সুনামের সহিত ব্যবসা পরিচালনা করে আসছেন। তার সুনাম নষ্ট করতে সুকুমার কর্মকার ও তার গুনধর ছেলে পলাশ কর্মকার তার বিরুদ্ধে মিথ্যা নাটক সাজিয়ে হয়রানির উদ্যেশ্যে সংবাদ সম্মেলনের নাটক করে এবং কপিলমুনি প্রেসক্লাবের নাম ব্যবহার করে দু’একজন সাংবাদিককে ভুল বুঝিয়ে সংবাদ সম্মেলন করে। যা নিয়ে সাংবাদিক মহল বিব্রত ও রীতিমতো হতবাক হয়েছে। শুধু এই নয়, ইতোপূর্বে তার নামে কপিলমুনি বণিক সমিতি বরাবর একটি মিথ্যা অভিযোগ আনায়ন করে তারা। যা পরবর্তীতে নিজের ভুল বুঝতে পেরে প্রকাশ নামে এক ব্যবসায়ী ভুল শিকার করে অভিযোগটি প্রত্যাহার করে নেয়। ভুক্তভোগী পঙ্কজ আরোও বলেন, উক্ত পলাশ কর্ম্মকার এতোটাই বেপরোয়া যে, সে বাড়ি যাতায়াতের রাস্তায় তার মটরবাইক দিয়ে তাকে কয়েকবার চাপা দেয়ার চেষ্টা করে। এতোকিছুর পরেও তাদের ষড়যন্ত্রের মিশন বন্ধ হয়নি। দলবদ্ধ হয়ে লোহাপট্টির ব্যবসায়ী গৌরপদ কর্ম্মকার, ষষ্ঠী কর্ম্মকার, গনেশ কর্ম্মকার, শৈলেন কর্ম্মকার মিলে তার সহ পরিবারকে দেখে নেবে বলে হুমকিও দিচ্ছে। কোন কারণ ছাড়াই তাদের এমন আচারণে পঙ্কজ রীতিমতো ভীত সন্ত্রস্ত। উল্লেখ্য দোকান ব্যবসায়ীরা সবাই তার গ্রামপ্রতিবেশী। যে কোন মুহূর্তে তারা তার পরিবার সহ জান মালের ক্ষতি করতে পারে বলে আশংকা করছেন। তিনি লিখিত বক্তব্যে কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, কোন দোষ করিনি, ন্যায়সঙ্গত অধিকার নিতে পিতার রেখে যাওয়া সম্পত্তি রক্ষায় আইনের আশ্রয় নিয়ে আদালতে একটি মামলা করেছেন মাত্র। এতেই সুকুমার কর্ম্মকার ও ছেলে পলাশ কর্ম্মকারের গাত্রদাহ। আইনী মোকাবেলার ভয়ে তারা ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে লৌহপট্টির ব্যবসায়ী গৌরপদ কর্ম্মকার, ষষ্ঠী কর্ম্মকার, গনেশ কর্ম্মকার ও শৈলেন কর্ম্মকারকে তাদের পিছনে লেলিয়ে দিয়েছে। এরইমধ্যে গৌর কর্ম্মকারকে দিয়ে পঙ্কজ ও তার ছেলের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ আনায়ন করে গত ১১/০৮/২৩ তারিখে ৫৬৪ নং একটি জিডি করেছে। যা চরম মিথ্যাচার ছাড়া কিছুই না। সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে যাতে সুকুমার কর্ম্মকার, ছেলে পলাশ কর্ম্মকার, গৌর কর্ম্মকার সহ ষড়যন্ত্রকারী নরপিশাচদের হাত থেকে বাঁচতে পারে ও ব্যবসা বানিজ্যসহ নিরাপদে পথ চলতে পারে সেকারণে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে থানা ওসিসহ প্রশাসানের উর্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021